‘ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন হলিউড’

লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও ও ব্রাড পিটকে দেখা যাবে এক সাথে। Image Source: Variety

বিশ্ব এখন উন্মুক্ত, উন্মুক্ত চলচ্চিত্রের ভাষাও। হলিউডের টুকটাক খোঁজ যারা রাখেন টারান্টিনোর নাম শোনেননি- হতেই পারেনা। ‘Pulp Fiction’, ‘Kill Bill, ‘Inglorious Basterds’, ‘Sin City’ খ্যাত কুয়েন্টিন টারান্টিনো এই বছরই আসছেন ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন হলিউড  নিয়ে। তাই গোটা চলচ্চিত্র পাড়া তো বটেই, দর্শক মহলও বেশ সচকিত। চলুন জেনে নিই টারান্টিনোর পরবর্তী ছবির অল্পবিস্তর কথা।

টারান্টিনোর বয়ান

‘আমি এই স্ক্রিপ্ট নিয়ে বিগত ৫ বছর ধরে কাজ করেছি। আমার জীবনের সিংহভাগই কেটেছে লস এঞ্জেলেস কাউন্টিতে ১৯৬৯ সালের সময়টাতেও আমি এখানে ছিলাম। তখন আমার বয়স মোটে সাত।‘ বলছিলেন মার্কিন পরিচালক কোয়েন্টিন টারান্টিনো। ‘আসলে আমি লস এঞ্জেলেস আর হলিউডের এই গল্পটা বলতে বেশ আগ্রহী, হলিউডের যেই রূপটা আসলে এখন আর নেই।পাশাপাশি ডিক্যাপ্রিও আর ব্রাড পিটকে একসাথে রিক-ক্লিফ চরিত্রে পাওয়ার ব্যাপারটা আরও উদ্দীপনাকর। এর আগে অবশ্য ‘Inglorious Basterds’ (২০০৯) -এ ব্র্যাড পিটকে নিয়েছিলেন তিনি। অন্যদিকে ক্যাপ্রিও তাঁর পরিচালনায় কাজ করেছেন ‘Django Unchained’(২০১৩) তে।

টারান্টিনোর নবম চলচ্চিত্র ‘Once Upon A Time In Hollywood’
Image source: Hollywood Reporters

পেছনের গল্প

ছবির গল্পের পটভূমিতে আছে ১৯৬৯ সালের হলিউড। ঠিক ওই সময়টাতে ইম্যানসন পরিবারের মাধ্যমে ঘটে ভয়াবহ হত্যাকাণ্ড এই হত্যাযজ্ঞের অন্যতম ভিক্টিম ছিলেন সেসময়ের সুন্দরী অভিনেত্রী এবং স্বনামধন্য চিত্র পরিচালক রোমান পোলানস্কির স্ত্রী শ্যারন টেইট।সেই পরিবারেরই প্রতিবেশি ছিলেন রিক আর ক্লিফ। টেলিভিশনে কাজ করলেও সিনেমায় নামাই ছিল রিকের নেশা, আর তার সাথে ছিল তারই বডি ডাবল হিসেবে কাজ করা ক্লিফ। তাদের সেই প্রচেষ্টা আর ম্যানসন পরিবারের মৃত্যুকে কেন্দ্র করেই আবর্তিত হবে এই সিনেমা।

জমকালো কাস্টিং

টারান্টিনোর নবম চলচ্চিত্র ‘ Once Upon A Time In Hollywood’ এ অভিনেতাদের নামের বহরটা বেশ জমকালোই মূল চরিত্রে থাকছেন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও, ব্র্যাড পিট আর লাস্যময়ী মারগট রবি। শ্যারন টেইটের ভূমিকায় আছেন রবি আর রিক ডাল্টনের চরিত্রে দেখা যাবে ক্যাপ্রিওকে। পিট থাকছেন ক্লিফ বুথের চরিত্রে।

এছাড়াও আলপাচিনোকে দেখা যাবে রিক বা লিওনার্দোর ক্যারেক্টার এজেন্ট হিসেবে। চার্লস ম্যানসনের চরিত্র রূপায়ণ করবেন ড্যামন হেরিমেন, ব্রুসলি’র চরিত্রেমাইক মোহ, হলিউড তারকা স্টিভ ম্যাক্কুইনের চরিত্রে থাকছেন ডেমিয়েন লুইস, জে সাবরিংয়ের চরিত্রে এমিলে হারস আর ডাকোটা ফ্যানিং থাকছেন লিনেট ফ্রমের চরিত্রে।

শ্যারন টেইটের ভূমিকায় থাকছেন মারগট রবি
Image Source: Vice

ব্রুট রেনল্ডসকে কাস্ট করা হলেও তাঁর আকস্মিক মৃত্যুতে স্থলাভিষিক্ত হন ব্রুসডার্ন । এছাড়াও লিউক পেরিকেও দেখা যাবে ১৯৬৮’র ওয়েস্টার্ন সিরিজ ‘ল্যান্সার’ এর মূল অভিনেতা স্কট ল্যানচার চরিত্রে।

ডিক্যাপ্রিওর উচ্ছ্বাস

গত বছর জানুয়ারিতেই ক্যাপ্রিও জানান টারান্টিনোর পরবর্তী প্রজেক্টে কাজ করছেন তিনি। তখন থেকেই অবশ্য মিডিয়া বেশি সরব।প্রথম থেকেই এবিষয়ে ক্যাপ্রিও বেশ উচ্ছ্বসিত। হাসি মুখেই মিডিয়াকে তিনি জানান তাঁর এই উদ্দীপনার কথা। ‘পিটের সাথে কাজ করতে পারার সুযোগটা দারুণ। আর হলিউডের মুভিতো সবসময়ই আমার পছন্দের তালিকার শীর্ষে। আর এলএর একজন অধিবাসী হিসেবে বলবো, এটা আমার পড়া অন্যতম সেরা স্ক্রিপ্ট। নিঃসন্দেহে আমাদের কাজটা দুর্দান্ত হবে।‘

রিলিজের তারিখ নিয়ে দোটানা

ছবির রিলিজ ডেট প্রথমে ঠিক করা হয়েছিল আগস্টের ৯ তারিখ, ম্যানসন পরিবার হত্যাকাণ্ডের ৫০ বছর উপলক্ষে।তবে পরবর্তীতে সেটা এগিয়ে আনা হয় ২৬ জুলাইয়ে।

পোস্টার রিলিজ

মুভির পোস্টার রিলিজ হয় ১৮ মার্চ ২০১৯ তারিখ। পোস্টারে ক্যাপ্রিও-পিটের পাশাপাশি হলিউডের আইকনিক পাহাড়ও দেখা যায় ব্যাকগ্রাউন্ডে।এর আগে জানুয়ারির ২৫ তারিখে মুভির কিছু স্থিরচিত্রও প্রকাশ পায় মিডিয়া জুড়ে। আর সর্বশেষ ২০ মার্চ রিলিজ পায় এর প্রথম ট্রেইলার, যা শুধু ইউটিউবেই দেখা হয়েছে ১৫,২৯১,৯৫৬ বারেরও বেশি।

কলাম্বিয়া পিকচারস, হেইডে ফিল্মস ও বোনা ফিল্ম গ্রুপের প্রযোজনায় আগামী ২৬ জুলাই আমেরিকাসহ সারাবিশ্বে মুক্তি পেতে চলেছে এই ছবিটি।

মুভির পোস্টার
Image source: IMDB

পরিবেশকদের লড়াই

Once Upon A Time In Hollywood এর পরিবেশনার কাজটি করবে সনি। ফক্স, ইউনিভার্সাল, ওয়ারনারব্রস ,লায়ন্সগেট, অন্নপূর্ণার মত বাঘাবাঘা সব সংস্থাকে পেছনে ফেলে এই কাজটা বাগিয়ে নিয়েছে তারা। এর মূলে আছে সনির চেয়ারম্যান টম রথম্যানের মুন্সিয়ানা ।চলচ্চিত্র সম্পর্কে তাঁর জ্ঞান দেখেই টারান্টিনো বেছে নেন তাঁকে।

টারান্টিনোর আগের ছবি গুলোর পরিবেশক ছিল প্রথমদিকে ‘মিরাম্যাক্স’  এবং পরবর্তীতে ‘দি ওয়েনস্টেইন কোম্পানি’।২০১৭ সালে যৌন হয়রানির অভিযোগে অভিযুক্ত হলে হার্ভে ওয়েনস্টেইন বের হয়ে আসেন কোম্পানি থেকে। ফলশ্রুতিতে টারান্টিনোও সরিয়ে নেয় তাঁর পরিবেশনাস্বত্ব।

তাহলে সামনের জুলাইয়ে দেখা যাবে, বহুল প্রতীক্ষিত এই চলচ্চিত্র দর্শক ও বোদ্ধামহলে কতটা সাড়া ফেলতে পারে। Pulp Fiction  যেমন বদলে দিয়েছিল হলিউডের ভাষা তেমনি “Once Upon A Time In Hollywood” কি পারবে তেমন কোন বদল আনতে? প্রতীক্ষা ২৬ জুলাইয়ের।

লেখক- Sarah Tamanna Shukti

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সাম্প্রতিক পোস্ট

সর্বাধিক পঠিত