বাংলা ইনফোটিউব: ভাবছিলাম এই বিষয়ে কিছু আর লেখার দরকার নাই। কিন্তু নিপীড়কতো শুধু জয় বাংলার মিছিল থেকে বের হয় নাই। নিপীড়কতো ঘরে ঘরে মগজে মগজে দেখতাছি! অদিতীর স্টাটাস নিয়ে অনেকেই সন্দেহ পোষন করেছেন। তারা আশ্চর্য হয়ে গেছেন এইটাও সম্ভব! জন সম্মুক্ষে, মিছিল থেকে এইসব ঘটতে পারে না। কেউ কেউ বলার চেষ্টা করছেন মেয়েটি হিপোক্রেসি করছে… হেন তেন। আর এই ঘটনা কিভাবে ঘটে হাউ ফানি!
আপনারা কোন রাষ্ট্রে আছেন ভুলে গেছেন? এই আপনারা মিলে এই সমাজটারে নিষক্রিয় করছেন। হিংস্র করছেন। অদিতীদের ঘটনা আপনাদের কাছে সন্দেহ প্রবন হচ্ছে। অবাক লাগে…। মনে নাই এই দেশে কি ঘটে? ওরাতো ভালোই এইদেশে পুলিশ পিকাপে তুলে নিয়ে রেপ করার ঘটনা ঘটছে…। এই দেশে নিরাপত্তা তল্লাশীর নামে দুই আদীবাসী বোনকে ধর্ষন করা হইছে। এই দেশে উৎসবে মায়ের সাথে গিয়ে মেয়ে নির্যাতনের শিকার হইছে। সেইখানেও এমন মবই ছিলো।
পহেলা বৈশাখে ওই যুবকদের কথা ভুলে গেছেন যারা এতো ভীড়ের মাঝেও দলে বেধে হৈহৈ করতে করতে নারীদের টেনে শাড়ী খুলে ফেলেছিলো মায়ের সামনে?


জাহাঙ্গীর নগরে নিজের ক্যাম্পাসে পহেলা বৈশাখ পালন করতে গিয়ে ক্যাম্পাসেরই ছাত্রলীগের কয়েকজনের কাছে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছিলো এক আদীবাসী মেয়ে।
সাংবাদিক নাদিয়া শারমিনের কথা মনে আছে? যে হেফাজতের নিউজ কভার করতে গিয়ে শুধু পোশাকের কারনে মার খেয়েছিলো?
অদিতীর স্টাটাসের মাধ্যমে এই ঘটনা সামনে আসলো। কিন্তু এইটা কি নতুন? যখন বড় বড় সমাবেশ হয়। বাস ভইরা সোনার চান্দেরা আসে। দেইখেনতো সমাবেশের আশে পাশে তারা ঘুরতে ঘুরতে কি কান্ড করে?
জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে অদিতিকে নির্যাতন করা হইছে এই কারনে আপনাগো মনে সন্দেহ পোষন হয়। অথচ খোদ ছাত্র লীগের একটি ইউনিটের উপ সম্পাদক পোস্টধারী এক মেয়ে নিজে হয়রানীর শিকার হয়ে স্টাটাসে সেই ঘটনা উল্লেখ করেছেন। আওয়ামী লীগের পরিবার থেকে উঠে আসা আরেক মেয়ে তার পারিবারিক রাজনৈতিক পরিচয় দিয়ে ৭ মার্চ নিজের সাথে ঘটা নিপীড়নের কথা বর্ণনা করেছেন। তাও আপনাদের বিশ্বাস হয় না।

অদিতি সহ বেশ কিছু নারীর উপর যৌন হয়রানি নিয়ে সাহেদ আলমের বিশ্লেষন…

এই দেশে এই স্লোগান যে অপরাধ কর্মের ঢাল হিসেবে ব্যবহার হইতেছে এইটা কি নতুন? জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে কুপিয়ে হত্যাসহ বহু ঘটনাই এই দেশে ঘটছে। এক দল উচ্ছৃঙ্খল তরুন মিছিল থেকে এমন ঘটনা ঘটাইতে পারে সেইটা আপনারা ভাবতেই পারনে না! আহ কি সোনার চান্দের দেশ আপনার। ওয়েট এন্ড সি…। ঘটনা শেষ হয় নাই। সামনে আরো দিন আছে। দেখতে থাকেন…। তবে আমার আপনার জন্য আফসোস হচ্ছে এই কারনে যে, আপনার কাছে যেহেতু এইসব ঘটনা সত্যি না সেহেতু আপনি এই নিপীড়কদের বিষয়ে সচেতন থাকবেন না। এবং আপনার বান্ধবী বোন বউ সন্তান নিয়ে ঘুরতে বের হলে সতর্কও থাকবেন না। কারন এমন তো ঘটতেই পারে না…। এইসব সাজানো প্লট…। আর আপনার সন্দেহ দূর হতে হতে ততোক্ষনে হয়তো বড় একটি ক্ষতি হয়ে যাবে…যার দায়ভার হয়তো আপনার নিজেরও…। কারন এই নীপড়কের সমাজ নির্মানে আপনারও ভূমিকা আছে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য- সরাস্ট্রমন্ত্রী বলেছেন- ‘বাংলামটরে অদিতীকে হয়রানির ঘটনার ভিডিও ফুটেজ হাতে এসেছে। দোষীদের শাস্তির আওতায় আনা হবে।’

-আব্দল্লুাহ মাহফুজ অভি
তরুন নির্মাতা ও সংস্কৃতি কর্মী

মন্তব্য করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *